শিরোনামঃ
সরকার কারিগরি শিক্ষাকে যুগোপযোগী করে গড়ে তুলেছে ‘সরকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের মাধ্যমে মানুষের জীবনমান উন্নত করছে’ প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করলো সুইডেন যুবলীগ শনিবার ২৩ নভেম্বর ওয়াশিংটনে ফোবানার মিট এন্ড গ্রীট বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করলো বেলজিয়াম যুবলীগ আসন্ন যুবলীগের ৭ম কংগ্রেসে ক্লিন ইমেজে আলোচনায় মহিউদ্দিন আহমেদ মহি- নিজাম উদ্দিন হাইব্রিড আর গাঁজন সন্নাসী প্রসঙ্গে কিছু মনের কথা যেভাবে বিকৃত করা হচ্ছে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালের বক্তব্য! অর্থমন্ত্রীর ভাইরাল বক্তব্যঃ যা বলেছিলেন এবং যা শুনছি

বিকাশ একাউন্ট নিয়ে আতঙ্কিত ব্যবহারকারীরা

জহুরুল ইসলাম, বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:
লেনদেন এই বর্তমান যুগে অন্যতম মাধ্যম হিসাবে দিন দিন বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে বিকাশ। অতি সহজেই একস্থান থেকে অন্য স্থানে টাকা পয়সা অন্য স্থানে প্রেরণ করার ক্ষেত্রে বিকাশ ব্যবহার কারীর সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলছে। কিন্তু সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে বিকাশ একাউন্ট নিয়ে ব্যবহারকারীরা আতঙ্কের মধ্যে দিন পার করছে। প্রায়ই প্রতারক চক্রের ফাঁদে পড়ে অর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে বিকাশ একাউন্ট ধারীরা।

ভূয়া বিকাশ হেল্প লাইনের পরিচয় দিয়ে তথ্য হালনাগাদের নামে বিকাশ একাউন্টের পিন কোড নিয়ে প্রতারক চক্র হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। এ নিয়ে সংশয়ের মধ্যে পরে এখন আর্থিক লেনদেন করতে বিকল্প পথ অবলম্বন করছেন অনেকেই।

পত্রিকার এজেন্ট ব্যবসায়ী দৌলত মন্ডল এই প্রতিবেদককে জানান, আমার মোবাইল ফোনটা বাসায় রেখে নামাজ পড়তে যাই। নামজ শেষ করে বাসায় ফিরে দেখি কেউ আমার ফোনে কল দিয়েছে। পরক্ষনে আমি ফোনটা রিসিভ করার সাথে সাথে বিকাশ হেড অফিসের পরিচয় দিয়ে বলছে আপনার বিকাশ একাউন্ট ৬ মাস হল বন্ধ আছে। দয়া করে আপনার বিকাশ একাউন্টটা সচল করতে আপনার পিন কোডের যে গোপন নাম্বার রয়েছে তার শেষের ২টা নাম্বার আছে তা বলুন। আমি আপনার একাউন্ট একটিভ করে দিচ্ছি। আমার একাউন্টে তখন কিছু টাকা জমা ছিল। আমি তখন বুঝতে পারি এটা একটা প্রতারক চক্র। আমার টাকা হাতিয়ে নেয়ার জন্য ফন্দি করছে। ঐ বিকাশের কর্মকর্তাকে বলি আপনি তো প্রতারক চক্রে লোক। বিকাশ থেকে ফোন দিলে তো কখনও পিন নাম্বা চাইবে না। তখন উনি বলে ওঠেন আমি আপনার একাউন্ট বন্ধ করে দেব তথ্য না দিলে। এই বলে ফোন কেটে দেয়। তার পর থেকে আমার বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স দেখতে পারি নাই। আর কোন লেনদেনও করতে পারি নাই। পরে আমি বিকাশ হেল্প লাইনে ফোন দিয়ে আমার একাউন্ট পুনরায় একটিভ করেছি। ২৪ ঘন্টা অতিবাহিত হওয়ার পর আমার একাউন্ট লেনদেন করতে পারছি। কিন্তু আমি খুবই এই বিষয়ে চিন্তিত যে প্রতারক চক্র যদি আমার বিকাশ একাউন্টের লেনদেন বন্ধ করে দিতে পারে তবে তারা আমার একাউন্টের টাকা পয়সা চুরি করে নিতে পারবে না এমন নিরাপত্তা দেবে কে?

তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে আমি জানার জন্য বিকাশ হেল্প লাইনে ফোন দিয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম, যে যদি কোন প্রতারক চক্র যদি আমার একাউন্ট বন্ধ করে দেবার ক্ষমতা রাখে তাহলে টাকা চুরি করে নিতে পারবে কিনা? তারা আমাকে এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারে নি।

এখন আমি আমার বিকাশ একাউন্ট নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তার মধ্যে আছি। শুধু আমিই না আমার মত বেলকুচির অনেকেই প্রাতারক চক্রের পাল্টায় পরে টাকা পয়সা হাতিয়ে নিচ্ছে। এই ব্যবসায়ের লেনদেন করতে বিকাশ একাউন্টটা খুবই প্রয়োজন ছিল । কিন্তু এখন আমার লেনদেনের জন্য বিকল্প পথ বের করতে হবে।

Recent Comments

    © All rights reserved © 2018-19  Jamunarbarta.Com

    Desing & Developed BY লিমন কবির